0

হালাল ব্যবসার আইডিয়া দেখে নিন (Halal business ideas)

Share

ব্যবসাকে কিন্তু হালাল করে দিয়েছেন স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা,

অর্থাৎ ইসলাম এর চোখে ব্যবসা একটি হালাল রোজগার করার উপায়। তবে সেইটা কিন্তু সম্পূর্ণ ভাবে নির্ভর করতেছে আপনারা কিভাবে ব্যবসা করবেন সেটার উপরে। আপনাদের ব্যবসা করবার পদ্ধতি কি হালাল নাকি হারাম।  

ইসলামের দৃষ্টি কোন থেকে কিন্তু সুদ আল্লাহ তায়ালা হারাম করে দিয়েছেন। তবে বর্তমান সময়তে কিন্তু সুদ এক প্রকারের বিজনেস বলা যায়। কিন্তু যারা সুদ এর ব্যবসা করতেছেন তারা কিন্তু এখানে অবশ্যই হারাম ব্যবসা করে যাচ্ছেন। 

আমাদের আজকের এই লেখার ভিতরে আমি আপনাদের সাথে স্টেপ বাই স্টেপ বুজিয়ে দিব হালাল ব্যবসা কি, হালাল ব্যবসার আইডিয়া আর তার সাথে এর গুরুত্বগুলো সম্পর্কে। আর তাই জন্যই কিন্তু বিস্তারিত ভাবে সকল কিছু জানতে হলে আজকে আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাদেরকে ভাল ভাবে পড়া লাগবে। 

হালাল ব্যবসা কি? What Is Halal Business? 

হালাল হল ১টি আরবী শব্দ, আর যেটার মূল অর্থ হল বৈধ কিংবা অনুমোদিত।

সহজ কথাতে, হালাল ব্যবসা এর ক্ষেত্রে ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয় এর সম্মতিতেই কিন্তু সততা এর সহিত ব্যবসায়িক লেনদেন হয়ে থাকে। 

মুনাফা অর্জন করার উদ্দেশ্যে সৎভাবে পরিচালিত ইসলাম অনুমোদিত হল কিন্তু ব্যবসা, একই রকম ভাবে কিন্তু মুনাফা অর্জন করার উদ্দেশ্যে বৈধ। আর ইসলাম অনুমোদিত পদ্ধতিতেই পরিচালিত ব্যবসা আপনাদের কাছে হালাল ব্যবসা বলে বিবেচিত হবে, আশা করি যে আপনারা বুজতে পেরেছেন। 

আমরা ভিতরে অনেক মানুষেরাই কিন্তু জানি যে হালাল এর বরকত সব সময়তেই বেশি হয়ে থাকে। কিন্তু হারামে বেশি রোজগার হলে ও কোনো ধরনের বরকত আপনারা পাবেন না! এই বিষয়টিকে আমি আরও Clear ভাবে বুজিয়ে দিচ্ছি।

হালাল ব্যবসা বলতে কি বুজেন

হালাল ব্যবসা এর ক্ষেত্রে কিন্তু গ্রাহক আর বিক্রেতা উভয় এর সন্তুষ্ট থাকা অনেক দরকার। অর্থাৎ বিক্রেতা হিসাবে আপনারা আপনি যে পণ্য বিক্রি করতেছেন!  তাতে আপনাদের খুশি থাকা লাগবে। আর গ্রাহক যেন আপনাদের প্রোডাক্ট কিনে তারপরে সন্তুষ্ট হয়ে থাকে তাহলে সেই বিষয়ে লক্ষ রাখা লাগবে। 

ব্যবসা এর স্বার্থে আমরা অনেক সময়তেই ৫০ টাকাতে কেনা পণ্য গ্রাহক যারা আছে তাদেরকে ৬০ টাকা কিংবা ৭০ টাকাতেই কেনা হয়েছে বলেই কিন্তু সেটিকে বেশি দামে বিক্রি করে দিয়ে এরপরে সেটা থেকে বেশি লাভ করার চেষ্টা করে থাকে অনেকেই আছেন এটা করা ঠিক না। 

এই ক্ষেত্রে এটা হালাল ব্যবসা না। ব্যবসাতে খারাপ পণ্যকে ভালো বলে বিক্রি করে দেওয়া, প্রতারণা, বেশি লাভ করা কিংবা ব্যবসা এর স্বার্থে সকল অবৈধ কাজ হারাম এর পর্যায়ে যাবে। 

কিন্তু আপনারা যদি হালাল এর পথে থেকেই কম লাভ করতে থাকেন।  আর ক্রেতাদেরকে সৎভাবে পণ্য বিক্রি করতে থাকেন, তাহলে কিন্তু সেটার বরকত থাকবে হারামের তুলনাতে অনেক বেশি। হারাম হল ১টি অভিশাপ, আর যেটা মহান আল্লাহের দেওয়া। আর তাই সকলের দরকার হালালের পথে হতেই ব্যবসা শুরু করে দেওয়া। 

আপনাদের সাথে অনেক কিছুই বললাম, তাহলে আসুন জেনে নেই হালাল ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত সকল তথ্য। 

হালাল ব্যবসার আইডিয়া ২০২২ | Halal Business Idea 2022 

নিচে আমি কয়েকটা Halal Business Idea শেয়ার করব। নিচে দেওয়া আইডিয়া গুলো হতে যে কোনো ১টি choice করে! তারপরে আপনারা কাজ করা শুরু করে দিতে পারেন হালাল পদ্ধতিতেই। 

. হালাল ঔষধের ব্যবসা 

ইসলামিক দৃষ্টিতে ঔষধ এর ব্যবসাটিকে হালাল ব্যবসা হিসাবেই ধরা হয়ে থাকে। আপনারা ১টি ঔষধ এর দোকান দিতে পারেন! আর তারসাথে পুঁজি বিনিয়োগ করে কিন্তু সেইখানে ঔষধ বিক্রি করা শুরু করে দিতে পারেন। ঔষধ এর ব্যবসা হতে কিন্তু হালাল ভাবে অর্জিত অর্থ কখনই হারাম হবে না। আর তাই সেজন্যই কিন্তু Halal Business করতে হলে আপনাদেরকে ঔষধ বিক্রির ব্যবসাটি শুরু করে দেওয়া লাগবে। 

. হালাল কসমেটিকস ব্যবসা করতে পারেন  

হালাল প্রসাধনী সামগ্রী হচ্ছে শরীর আর ত্বকের যত্নের বিভিন্ন ধরনের পণ্য যেগুলোকে ইসলাম ধর্ম দ্বারা নিষিদ্ধ উপাদান হতে মুক্ত করা। আর তাই সেজনই কিন্তু এই ব্যবসাটি হচ্ছে হালাল। হালাল প্রসাধনীকে কসমেটিক শিল্পে ১টি উদ্ভাবন হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে। কারণ এটা ক্রমবর্ধমান গ্রাহকদের চাহিদা পূরণ করে থাকে। 

আপনারা যদি এইসব কসমেটিকস সামগ্রী বানাতে জানেন!  তাহলে কিন্তু আপনারা এটা উৎপাদন করে এরপরে অন্যদের কাছে বিক্রি করার এই ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন।   

. হালাল ট্যুরিজম ব্যবসা 

আপনারা ইচ্ছা করলে মুসলিম ফ্রেন্ডলি ট্রাভেল পরিচালনা করার বিজনেস শুরু করে দিতে পারেন। ট্যুরিজম বিজনেস এর ক্ষেত্রে আপনারা গ্রাহকদের ট্রাভেল এর সব ধরনের ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করতে পারেন। 

অর্থাৎ থাকা, খাওয়া দাওয়া, কোথায় যাবে, কি করবে্ন এইগুলো সহ কিন্তু সব বিষয়গুলো আপনারা আপনাদের মাধ্যমেই ঠিক করে নিতে পারেন। ট্যুরিজম বিজনেস ফিল্ডে বর্তমান সময়তে কিন্তু হালাল ব্যবসায়ীদের জন্য দারুন ১টি সুযোগ আছে এখানে।  

. হালাল খাবার তৈরির করার ব্যবসা 

সুস্বাদু খাবার বানানোর এই ব্যবসাটি কিন্তু অনেক আগে থেকেই বেশ লাভজনক এই বিজনেস। আপনারা ইচ্ছা করলে কিন্তু ১টি ছোট দোকান অথবা রেস্টুরেন্ট বানিয়ে! তারপরে সেই খানে গ্রাহক যারা আছে তাদের রুচি আছে এমন সব খাবার অথবা সুস্বাদু খাবার বিক্রি করার বিজনেস শুরু করে দিতে পারেন। এমন খাবার বানাতে পারেন আপনারা যে খাবার খেলে গ্রাহকেরা সন্তুষ্ট হবে। 

. ইসলামিক শিক্ষা দান করার বিজনেস  

আপনাদের যদি ইসলামিক অনেক বিষয়ে ভালো জ্ঞান থেকে থাকে তাহলে কিন্তু আপনারা সেইগুলোকে মুসলিম শিশুদের শিখাতে পারেন। এটা ও এক প্রকার টিউশনি এর মতোই। প্রত্যেক বাবা মেয়েরাই কিন্তু চায় যে তারা তাদের সন্তানদেরকে যেনো ছোট হতে ভালো কিছু শিখিয়ে দিতে পারে। আর তার জন্যই কিন্তু তারা তাদের সন্তানদেরকে বিভিন্ন শিক্ষকদের নিকট পাঠিয়ে থাকেন। এই ক্ষেত্রে আপনারা কিন্তু শিশুদের বিভিন্ন ইসলামিক বিষয়ে শিক্ষা দান করার কাজ করতে পারেন। 

তাছাড়া ও কিন্তু হালাল ফ্যাশন ব্যবসা করাও আপনারা শুরু করে দিতে পারেন। এতক্ষণ আমরা প্রচলিত উপায়ে করবার জন্য ৫ টি Halal Business Idea জেনে নিয়েছি , চলুন তাহলে এখন কয়েকটা Online Halal Business Idea এর সম্পর্কে জেনে নেই। 

হালাল অনলাইন বিজনেস আইডিয়া 

. অনলাইন শিক্ষকতা করতে পারেন 

ইন্টারনেট হল পাঠদান করার ক্ষেত্রে বিস্তৃত ১ বাড়ি। ইন্টারনেট এর সাহায্যে কিন্তু আপনারা যে কোনো দেশ এর লোকেদের শিক্ষা দান করতে পারবেন খুব সহজেই। বর্তমান সময়ে কিন্তু এখন  অনলাইন শিক্ষক যারা আছে তাদের প্রচুর পরিমানে ডিমান্ড আছে। 

আপনারা আপনাদের জ্ঞান স্টুডেন্টদের শিখিয়ে কিন্তু তার বিনিময়ে নির্দিষ্ট পরিমানে কিছু সম্মানী তাদের কাছ থেকে নিতেই পারেন। বর্তমানে সময়ে কিন্তু এই অনলাইন ব্যবসাটা অত্যন্ত লাভজনক হয়ে যাচ্ছে। 

. ব্লগিং শুরু করে দিতে পারেন 

ব্লগিং বহু পূর্বে থেকেই কিন্ত প্রচলিত সেরা অনলাইন একটি পেশা। আপনারা ইচ্ছা করলে কিন্তু ব্লগিং পেশাকে নিতে পারেন। ১টি ব্লগ ওয়েবসাইট বানিয়ে তারপরে সেখানে আপনাদেরকে আপনার জ্ঞান সকলের সাথে শেয়ার করা লাগবে। এই আর্টিকেলের ভিতরে, আর্টিকেলের ভিতরে সকল কিছু লিখে! তারপরে সেটিকে আপনাদেরকে ওয়েবসাইট এর ভিতরে পাব্লিশ করে দিতে হবে। 

ব্লগে লিখলে আপনাদের মাধ্যমে অন্য মানুষেরা কিছু শিখতে পারবেন, আর তার সাথে সাথে কিন্তু আপনারা এডসেন্স দ্বারা প্রত্যেক মাসে ভালো অংক এর টাকা রোজগার করতে পারবেন অনেক সহজেই। বর্তমান সময়তে কিন্তু হাজার হাজার লাখ লাখ লোকেরা ব্লগিং করে রোজগার করতেছে।

সুতরাং আপনারা ও কিন্তু ইচ্ছা করলে ব্লগিংকে পেশা হিসেবে কোন চিন্তা ভাবনা না করেই বেছে নিতে পারেন, যদি আপনাদের লেখার হাত ভাল থাকে, মানে যদি আপনারা কোন একটা বিষয়ে অনেক ভাল জানেন তাহলে সেই বিষয় নিয়েই কিন্তু আপনারা আর্টিকেল লিখা শুরু করে দিতে পারবেন, কোন সমস্যা নেই। 

. এসইও এক্সপার্ট হিসেবে কাজ করতে পারেন  

অনলাইনে ১ জন এসইও এক্সপার্ট যারা আছে তাদের কিন্তু প্রচুর পরিমানে ডিমান্ড আছে। বলতে গেলে তার জন্য রোজগার করার অনেক উপায় আছে।

এসইও এর মানে হল সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন, আর যেটার মাধ্যম হল ১টি ওয়েবসাইটকে সার্চ ইঞ্জিন এর সবার শীর্ষের দিকে কিভাবে আনা যায় সেটা। 

বর্তমান সময়ে প্রায় সব ধরন এর কোম্পানি ১টি ওয়েবসাইট বানিয়ে নিচ্ছে, আর এই কারনে কিন্তু তারা তাদের ওয়েবসাইটটিকে সাইট সার্চ ইঞ্জিনে শীর্ষে আনার জন্য অনেক কোম্পানি আছে যারা হায়ার করে থাকেন বিভিন্ন এসইও এক্সপার্টদেরকে। 

আপনারা ইচ্ছা করলে Fiverr, Upwork এর মত ওয়েবসাইট গুলোতে এসইও এক্সপার্ট হিসাবে কাজ করা শুরু করে দিতে পারেন আজকে থেকেই।  

. ইউটিউব 

ইউটিউব হল ১টি উন্মুক্ত প্লাটফর্ম। যে কেউ ইচ্ছা করলে কিন্তু তাদের এই প্লাটফর্মে শেয়ার করে এইখান থেকে ও বেশ ভাল পরিমানে একটা টাকা রোজগার করা সম্ভব। আপনারা ইসলামিক বিষয়ে বিভিন্ন শিক্ষা ইউটিউব এর মাধ্যমে মানুষদেরকে দিতে পারেন। 

যখন আপনাদের ভিডিও গুলোর ভিতরে ভালো ভিউ আসা শুরু হয়ে যাবে, তখন কিন্তু আপনারা প্রত্যেক মাসে ইউটিউব হতেই রোজগার করতে পারবেন খুব সহজেই। 

হালাল ব্যবসা শুরুর করার আগে আপনাদেরকে যে বিষয়গুলোকে মাথায় রাখা লাগবে 

১. ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয় এর সম্মতিতে ব্যবসা করা লাগবে। 

২. যে পণ্য আপনারা বিক্রি করবেন সেইটা যেনো হালাল থাকে , হালাল না এই রকমের প্রোডাক্ট আপনারা বিক্রি করবেন না। 

৩. ওজনে কম দেওয়া দিবেন না, দাম বেশি বলে তারপরে কিন্তু আপনারা বিক্রি করবেন না। এক কথায় যদি বলি তাহলে ক্রেতাদেরকে কোনো রকম ভাবেই  প্রতারিত করবেন না। 

৪. মিথ্যা এর আশ্রয় নিয়ে কোন রকমের পণ্য বিক্রি কবেন না,  ভালোকে ভালো আর খারাপকে খারাপ বলে ব্যবসা করা লাগবে আপনাদেরকে এই বিষয়টা সব সময় মাথায় রাখবেন।   

৫. বিক্রয় করে দেওয়া প্রোডাক্ট ফেরত নিবেন, যদি প্রোডাক্ট এর ভিতরে কোন রকমের সমস্যা থাকে তাহলে change করে দিবেন।

. সর্বদা সৎ উপায়ে ব্যবসা করবেন এইগুলোই। 

আমাদের শেষ কথা

তাহলে আজকে আমাদের এই আর্টিকেলের ভিতরে আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম যে হালাল ব্যবসা কিকয়েকটি হালাল ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করলাম। 

আর্টিকেলটি আজকে আমি লিখছি শুধু নতুন যারা আছেন তাদেরকে ধারনা দেওয়ার জন্য আশা করি যে আজকে আমাদের এই লেখাটি আপনাদের অনেক ভাল লেগেছে। 

লেখাটি ভাল লাগলে বন্দুদের কাছে শেয়ার করে দিতে ভুলবেন না। আল্লাহ হাফেয, Good Bye. আবার কথা হবে অন্য কোন এক আর্টিকেলে, সেই পর্যন্ত সকলে ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন।