0

সাপ্লাই ব্যবসা কি এবং ১০টি লাভজনক সাপ্লাই ব্যবসা করার আইডিয়া

Share

আজকে আমি আপনাদের সাথে আমাদের এই আর্টিকেলের ভিতরে সাপ্লাই ব্যবসা সম্পর্কে আলোচনা করব। আপনারা যদি সাপ্লাই ব্যবসা করার চিন্তা ভাবনা করে থাকেন মানে আপনারা এই বিজনেস শুরু করবেন কিন্তু কিভাবে শুরু করবেন বুজতেছেন না তাহলে আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের জন্য। 

আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ার পরে আশা করি যে, আপনারা সাপ্লাই ব্যবসা সম্পর্কে সকল তথ্য জানতে পারবেন, সাপ্লাই ব্যবসা কি কেন কিভাবে শুরু করবেন, কি কি করা লাগবে এই বিজনেস করতে সকল কিছুই কিন্তু আপনারা আমাদের আজকের এই আর্টিকেলের ভিতরে জানতে পারবেন। তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক সকল তথ্য। 

সাপ্লাই ব্যবসা করে কিন্তু অনেকেই আছেন যারা কোটিপতি হয়ে গিয়েছেন,এই রকমের অনেক উদাহরণ আছে! এরকমের অনেক ব্যবসায়ী আছে যারা শুধু বিভিন্ন নির্মাণাধীন বাড়িগুলোতে, ব্রিজ, সেতু অথবা রাস্তা বানানোর জন্য রড, পাথর বালু সাপ্লাই দিয়ে লাখপতি হয়ে গিয়েছেন।   

তাছাড়া ও, গার্মেন্টস এক্সেসরিজ তথা সুতা, ট্যাগ, লেভেল, বোতাম, জিপারসহ সাপ্লাইয়ের ব্যবসা তো অনেক জনপ্রিয় আর লাভজনক ১টি ব্যবসা। বর্তমান সময়ে কিন্তু আমার ১ পরিচিত ভাই, রেস্টুরেন্ট আর হোম কিচেনগুলোতে মাশরুম, সবজি সরবারহ করে অনেক বেশ সফলতা লাভ করতে পেরেছে। 

সেটা যাই হোক,আজকে আমাদের আর্টিকেলের ভিতরে আলোচনা করব যে সাপ্লাই ব্যবসা কি, কিভাবে শুরু করবেন ব্যবসা আর কিছু লাভজনক সাপ্লাই ব্যবসা আইডিয়া আপনাদের সাথে শেয়ার করব। যে সকল ব্যবসা করে অনেক ব্যবসায়ী আছে যারা সফল হতে পেরেছেন।

সাপ্লাই ব্যবসা কি?

উৎপাদন মূলক কিংবা বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কিন্তু চাহিদা মোতাবেক পণ্য অথবা কাঁচামাল সরবারহকেই সাপ্লাই ব্যবসা বলা হয়ে থাকে। আর এইটাকে আবার অনেকেই আছেন যারা সরবারহকারী ব্যবসা ও বলে থাকেন। সাপ্লায়াররা কিন্তু অনেক ছোট জিনিস হতে শুরু করে অনেক বড় ধরন এর জিনিস এর সাপ্লায়ার ও হয়ে যেতে পারেন।

কিভাবে সাপ্লাই ব্যবসা শুরু করবেন

সাপ্লাই বিজনেস যদি আপনারা করতে চান তাহলে আপনারা সরকারি কোম্পানি দিতে পারেন, অথবা আপনারা ইচ্ছা করলে বেসরকারি কিংবা প্রাইভেট কোম্পানিতে ও কাজ করা শুরু করে দিতে পারেন।

সরকারি কোম্পানি যে গুলো আছে সেগুলোতে কিন্তু আপনাদেরকে কিছু নিয়ম- কানুন ফলো করা লাগবে। আবার এরপরে বেসরকারি কোম্পানি গুলোতে ও কিন্তু আপনাদেরকে লিস্টে-ড অথবা সরবারহকারী হিসেবে তালিকা ভুক্ত হওয়া লাগবে।

আবার কিছু সাপ্লাই ব্যবসা রয়েছে যেখানে এইগুলো করার জন্য কোন রকমের কাগজ পত্রের দরকার হয় না। এই রকমের কিছু ব্যবসা আইডিয়া নিচে আপনাদের সাথে আজকে আমি আলোচনা করব।

সাধারণ মানুষদের জন্য কিন্তু সাপ্লায়ার হতে যদি চায় তাহলে শুধু ৪টি ডকুমেন্ট এর দরকার হয়ে থাকে। যেমন মনে করুন যে,

  • আপনাদের ১টা ট্রেড লাইসেন্স থাকা লাগবে যে খানে লেখা দেখতে পারবেন আপনারা সরবরাহকারী। 
  • আপনাদের ১টি টিন সার্টিফিকেট থাকা লাগবে।
  • আপনাদের ১টি ব্যাংক একাউন্ট থাকা লাগবে।  
  • আপনাদের ভ্যাট রেজিস্ট্রেশন নাম্বার থাকা লাগবে।

এই ব্যবসাতে যদি লাভ এর কথা বলি তাহলে কিন্তু সেটা আপনাদের আশার চাইতে ও অনেক বেশি হয়ে যাবে। আপনারা যদি কোম্পানি গুলোতে প্রত্যেক মাসে ২ থেকে ৩ টি অর্ডার পান! তাহলে কিন্তু  মাস শেষে দেখা যাবে যে আপনাদের কাছে ২ লক্ষ টাকা থেকে শুরু করে ৩ লক্ষ টাকা পর্যন্ত অনায়াসে লাভ করতে পারবেন। মনে করুন যে, আপনাদের কাছে যদি ৬ লাখ টাকার মত অর্ডার আসে তাহলে আপনারা সেইখান থেকে ১ লাখ টাকার মতো লাভ পেয়ে যাবেন। 

নিজেরা যদি আপনারা পণ্য উৎপাদন না করেন তাহলে কিন্তু, ৫ হতে ১০ লক্ষ টাকা নিয়ে শুরু করে দিতে পারবেন এই বিজনেস। প্রথম দিকে আপনাদেরকে বিভিন্ন কোম্পানি অথবা কারখানা এর সেলস ম্যান যারা আছে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে! তারপরে তাদের কাছ থেকে কাজ নেওয়া লাগবে। 

আবার অনেকে আছেন যারা বড় বড় কোম্পানির জন্য টেন্ডার ছেঁড়ে থাকে! সেই সব টেন্ডারে আবেদন করে ও কিন্তু আপনারা ইচ্ছা করলে সাপ্লায়ের কাজ নিয়ে নিতে পারেন। এইবার, কয়েকটা লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া নিয়ে আপনাদের সঙ্গে আলোচনা করব। 

.কাঁচামাল সাপ্লাইয়ের ব্যবসা  

আপনারা ইচ্ছা করলে কিন্তু সরাসরি কাঁচামাল সাপ্লাই করার ব্যবসাটি  শুরু করে দিয়ে প্রত্যেক দিন ভালো পরিমাণে একটা মুনাফা লাভ করতে পারবেন খুব সহজেই। যে সকল মানুষেরা সাধারণত বাহিরে কাঁচামাল এর ব্যবসা করেন তারা কিন্তু তাদের প্রতিদিন এর কাঁচামাল এর দরকার হয়ে থাকে! আর তাই সেই জন্যই কিন্তু তারা বিভিন্ন আড়তদারদের কাছ হতে কাঁচামাল সংগ্রহ করে নেয়। 

আপনারা চাইলে ও কিন্তু তাদের আড়ত এর দামে কাঁচামাল সরাসরি দোকানে সাপ্লাই করার কাজ করতে পারেন। তারা যদি অল্প দামের ভিতরে আপনাদের কাছে এসে কাঁচামাল পায় তাহলে কিন্তু অবশ্যই আপনাদের কাছ হতে তারা কাঁচামাল কিনে নিবে। 

তাই আপনারা ইচ্ছা করলে কিন্তু এইভাবেই এই ব্যবসাটি শুরু করে দিতে পারেন। আপনারা যদি সঠিক ভাবে এই ব্যবসাটা করা শুরু করতে পারেন তাহলে কিন্তু অবশ্যই এই ব্যবসা এর মাধ্যমে আপনারা বেশ ভাল পরিমানে একটা লাভ করতে পারবেন। 

.ফলের সাপ্লাই ব্যবসা  

যে সকল ফল বিক্রেতাদের ফলের দোকান আছে তাদের কিন্তু দোকানে প্রায় সব সময়তেই ফল শেষ হয়ে যাবার কারনে পরে তাদেরকে আবার ফল নিয়ে আসা লাগে। তাই আপনারা ইচ্ছা করলে কিন্তু বিভিন্ন জায়গা হতে কম দামের ভিতরে ফল সংগ্রহ করে!  তারপরে সেগুলোকে আনার পরে ফলগুলো আপনারা দোকানে দোকানে বিক্রি করে দিতে পারেন।   

ফলের দোকানদার যারা আছে তারা যদি আপনাদের কাছ থেকে অল্প দামের ভিতরে ফল কিনতে পারে, তাহলে কিন্তু তারা আপনাদের কাছ থেকে কিনবে।  

আর আপনারা যত বেশি পরিমানে ফল তাদের কাছে বিক্রি করতে পারবেন আপনাদের লাভ করার পরিমাণটা ও কিন্তু ঠিক ততটাই বাড়বে। তাই আপনারা যদি সাপ্লাই ব্যবসা করবেন বলে ঠিক করে থাকেন! তাহলে কিন্তু ফল এর সাপ্লাই ব্যবসাটি শুরু করে দিতে পারেন। 

.জুতার সাপ্লাই ব্যবসা  

জুতা হচ্ছে কিন্তু আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় ব্যবহার করার জন্য ১টি জিনিস। তাহলে আপনারা বুঝতেই পারতেছেন তো যে জুতার প্রয়োজন আমাদের ও কিন্তু হয়ে থাকে। 

আপনারা কিন্তু ইচ্ছা করে এই সুযোগটাকে কাজে লাগিয়ে তার পরে জুতার সাপ্লাই করার ব্যবসাটা শুরু করে দিতে পারেন। আপনারা মার্কেটে অনেক দোকানে পেয়ে যাবেন যেখানে দোকান গুলোতে মূলত অনেক রকমের জুতা বিক্রি করে। 

আপনারা চাইলেই কিন্তু পাইকারিভাবে অল্প দামের ভিতরে ভাল মানের সকল জুতা সংগ্রহ করে। তারপরে সেইগুলোকে  দোকান গুলোতে আপনাদেরকে বিক্রি করে দিতে পারেন। বর্তমান সময়ে কিন্তু যত সাপ্লাই ব্যবসা আছে তার ভিতরে জুতা এর সাপ্লাই ব্যবসাটা অনেক লাভজনক ১টি ব্যবসা বলা যায়।  

. টিশার্টের সাপ্লাই ব্যবসা  

মার্কেটের ভিতরে যত ধরনের দোকান আছে সেখানে কিন্তু সেই দোকানগুলোতে কোনো না কোনো স্থান হতে তাদের দোকান এর জন্য টি-শার্ট নিয়ে থাকেন। আপনারা চাইলেই কিন্তু এই সকল দোকান গুলোতে টিশার্টের সাপ্লায়ার হিসাবে কাজ করা শুরু করে দিতে পারেন।    

এই ক্ষেত্রে আপনাদেরকে দেশ এর সব থেকে সেরা কয়েকটা পাইকারি পোশাক এর বাজার হতে  ভালো মান এর টি-শার্ট সংগ্রহ করা লাগবে মানে এই সকল দোকান গুলোতে আপনাদেরকে সাপ্লাই করা লাগবে। 

আপনাদের সাপ্লাই করা টি-শার্টগুলো যদি ভালো আর গুণগত মানের হয়ে থাকে। তাহলে কিন্তু দেখা যাবে যে দোকানদাররা পছন্দ করবে আর কেউ যদি ১ বার যদি পছন্দ করে থাকে, তাহলে তারা বারবার কিন্তু আপনাদের কাছ থেকেই মাল কিনে নিবে। 

তাই আপনারা যদি সাপ্লাই ব্যবসা শুরু করে দিতে চান। তাহলে কিন্তু আপনাদের জন্য এই ব্যবসাটি হয়ে যেতে পারে দারুন ১টি লাভজনক ব্যবসা। 

.গিফট বক্সের সাপ্লাই ব্যবসা  

আমাদের বাংলাদেশের ভিতরে দেশের ছোট কিংবা বড় যত কোম্পানি আছে তারা প্রত্যেক বছরই কিন্তু ১টি করে অনুষ্ঠান এর আয়োজন করে থাকেন। আর এই সকল অনুষ্ঠানে সাধারণতভাবে কিন্তু পুরস্কার হিসাবে সকলকে গিফট দেওয়ার ব্যবস্থা করা থাকে। 

আর তাই সেইজন্য আপনারা চাইলেই কিন্তু এই সুযোগটাকে কাজে লাগিয়ে তারপরে আপনাদের সাপ্লাইয়ের ব্যবসা শুরু করে দিতে পারবেন। বড় বড় যে সকল কোম্পানি আছে সেখানে কিন্তু আপনারা গিফট বক্স সাপ্লাই করার কাজ করতে পারবেন। 

আপনারা চাইলে কিন্তু পাইকারি দামে অথবা হোলসেল Price এর ভিতরেই যে কোন মার্কেট হতে এই সব পণ্যগুলোকে কিনে নিয়ে আসার পরে তারপরে সেইগুলোকে বেশি দামে বিক্রি করে দিতে পারবেন। 

আর আপনারা এইক্ষেত্রে আগে কোম্পানি এর কাছ হতে অর্ডার নিবেন। তারপরে আপনাদেরকে মালগুলো সাপ্লাই করে দিতে পারবেন! আর এর মাধ্যমে কিন্তু আপনারা ভাল টাকা লাভ ও করে নিতে পারবেন। 

.মাছের সাপ্লাই ব্যবসা  

আপনারা কিন্তু হাটে-বাজারে লক্ষ্য করলে দেখতে পারবেন যে অনেক মাছ ব্যবসায়ী আছে! যারা রাস্তায় সরাসরি মাছ বিক্রি করেন। তারা কিন্তু সাধারনত ভাবে মাছ এর আড়ত হতে মাছ সংগ্রহ করেন!  আর তার পরে সেগুলোকে নিয়ে আসেন অনেক সময়তে।  

তাছাড়া ও তারা যে খানেই কম দামে মাছ পান তারা কিন্তু সেইখান থেকেই মাছ নিয়ে আসে আর তারপরে সেগুলোকে হাটে বিক্রি করে দেন। আপনারা ইচ্ছা করলে ও কিন্তু তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে আমাদের বাংলাদেশের সব থেকে বড় মাছ এর বাজার হতে মাছ অল্প দামে কিনে! তারপরে মাছ সংগ্রহ করে নিয়ে আসতে পারেন। আর তারপরে তাদেরকে সাপ্লাই করে দিতে পারেন।   

আপনারা যদি এই বিজনেস করেন তাহলে কিন্তু আসলে এখানে আপনারা যত বেশি পরিমানে তাদের কাছে মাছ সাপ্লাই দিতে পারবেন। অর্থাৎ যত বেশি বিক্রি করে দিতে পারবেন আপনাদের লাভের পরিমাণটা ও কিন্তু তত বেশি বাড়তে থাকবে, আশা করি বুজতে পেরেছেন। তাই আপনারা যদি সাপ্লাই ব্যবসা শুরু করে দিতে চান তাহলে কিন্তু আপনারা এই ব্যবসাটা শুরু করে দিতে পারেন।  

.খাতাকলমের সাপ্লাই ব্যবসা 

আমরা যারা পড়াশোনা করি তাদের কিন্তু খাতা-কলম এর দরকার হয়। আপনারা চাইলেই কিন্তু পাইকারি কোন বাজার হতে অল্প দামের ভিতরে খাতা কলম সংগ্রহ করে তার পরে সেগুলোকে এনে বিভিন্ন দোকান ঠিক করে সেখানেই সাপ্লাই করে দিতে পারেন। 

আপনারা কিন্তু এই ক্ষেত্রে যত অল্প দামের ভিতরে মাল কিনতে পারবেন দোকানিরা আপনাদের মাল এর প্রতি অনেক বেশি আকৃষ্ট হবেন। আপনারা এই ক্ষেত্রে যত বেশি মাল সাপ্লাই করতে পারবেন আপনারা কিন্তু ঠিক তত বেশি পরিমানেই মুনাফা লাভ করতে পারবেন। 

আস্তে আস্তে করে কিন্তু আপনারা ইচ্ছা করলে দোকানদারদের সংখ্যা বাড়িয়ে নিতে পারেন আর তাহলে কিন্তু দেখা যাবে যে, আপনাদের মাল এই ক্ষেত্রে অনেক সাপ্লাই হবে। তাই আপনি যদি সাপ্লাই ব্যবসা শুরু করবেন বলে মনে করেন তাহলে এই ব্যবসাটি আপনারা শুরু করে দিতে পারেন। 

.কসমেটিকসের সাপ্লাই ব্যবসা 

কসমেটিকস এর যে সকল মালামাল আছে সেগুলোকে কিন্তু বেশি মেয়েরাই পছন্দ করে থাকেন। আর বাজারে কিন্তু যখন কোন নতুন কসমেটিকস আসে তখন কিন্তু আসলে সেটার অনেক চাহিদা থাকে। 

আপনারা মার্কেটে অনেক দোকান দেখতে পারবেন যারা সাধারণত ভাবে কসমেটিকস এর বিভিন্ন মালামাল বিক্রি করেন। আপনারা ইচ্ছা করলে কিন্তু বিভিন্ন ধরনের আইটেম এর কসমেটিকস মালামাল তাদের কাছ থেকেই কিন্তু সাপ্লাই করে দিতে পারেন। আর তারপরে সেখান হতে আপনারা  ভালো পরিমানে একটা মুনাফা লাভ করতে পারবেন। 

আপনারা যদি সঠিক ভাবে এই ব্যবসা পরিচালনা করা শুরু করে দিতে পারেন। তাহলে কিন্তু অবশ্যই আপনাদের ব্যবসা এর মাধ্যমে অনেক কিছুই করতে পারবেন। তাই আপনারা যদি সাপ্লাই ব্যবসা করবেন বলে ভেবে থাকেন তাহলে কিন্তু এই ব্যবসাটা আপনারা শুরু করে দিতে পারেন। 

.মসলা সাপ্লাইয়ের ব্যবসা 

বাঙালিদের কাছে মসলা চিরকালই অনেক পছন্দ এর একটি জিনিস। বাঙালি এর খাবার এর সঙ্গে মসলার যদি না হয়ে থাকে তাহলে কিন্তু তাদের খাওয়া পরিপূর্ণ হয়ে উঠে না। 

আপনারা কিন্তু অনেক রকমের মসলা আমাদের দেশের ভিতরে পাবেন। আপনারা কিন্তু এইসব মসলা গুলোকে বিভিন্ন জায়গা হতেই পাইকারি দামে সংগ্রহ করতে পারেন। আর তারপরে সেগুলোকে  দোকানে দোকানে বিক্রি করতে পারবেন। 

আপনারা যদি দোকানদার যারা রয়েছে তাদেরকে আপনি ভালো মান এর মসলা দিতে পারেন। তাহলে কিন্তু দেখা যাবে যে, দোকানদাররা বার বার আপনাদের কাছ হতে মসলা সংগ্রহ করবে। আর এর মাধ্যমে আপনার বিক্রি বাড়বে ও তার সাথে সাথে আপনারা ভালো পরিমাণে মুনাফা লাভ করতে পারবেন। আশা করি বুজতে পারছেন। 

তাই আপনারা যদি সাপ্লাই ব্যবসা করবেন এইটা বলে ভাবেন তাহলে কিন্তু এই  ব্যবসাটা আপনারা করতে পারেন এটা ও কিন্তু  দারুন ১টি লাভজনক ব্যবসা হবে আপনাদের জন্য।

১০.ডিমের সাপ্লাই ব্যবসা 

আপনারা ইচ্ছা করলে কিন্তু ডিম এর সাপ্লাই ব্যবসাটি শুরু করে দিতে পারেন। এই ক্ষেত্রে আপনাদেরকে ডিম এর পাইকারি বাজার গুলো হতে ডিম সংগ্রহ করে। তারপরে আনা লাগবে আর সেই ডিম অল্প দামের ভিতরে দোকানদারেরদের কাছে সাপ্লাই করা লাগবে।    

আপনারা যদি অল্প দামের ভিতরে ভালো ডিম দোকানদারদেরকে Manage করতে পারেন তাহলে কিন্তু দেখা যাবে যে, তারাই বারবার আপনাদের কাছ হতে ডিম সংগ্রহ করে নিবে। আর আপনারা এই ক্ষেত্রে যত বেশি দোকানদার বাড়াতে পারবেন আর যত বেশি পরিমানে ডিম সাপ্লাই করতে পারবেন, আপনারা কিন্তু ঠিক ততবেশি এই ক্ষেত্রে লাভবান হতে পারবেন।  

আর তাই আপনারা ইছা করলে কিন্তু সরাসরি ডিম সাপ্লাই এর মাধ্যমে এই ব্যবসাটি শুরু করে দিতে পারেন। আর এই বিজনেস থেকে কিন্তু বেশ ভাল পরিমানে লাভবান হতে পারবেন।    

সাপ্লাই ব্যবসা শুরু করার আগে কিছু টিপস 

আপনারা ইচ্ছা করলে কিন্তু সাপ্লাই ব্যবসা করেও বেশ ভাল পরিমানে মুনাফা লাভ করতে পারবেন।  এই কথাটা কিন্তু সত্যি আপনাদেরকে এই ব্যবসাটা সঠিক পদ্ধতি অবলম্বন করা লাগবে। 

সাপ্লাই ব্যবসা কিভাবে শুরু করবেন সেটা আপনাদেরকে সবার আগে জানা লাগবে। আপনাদেরকে মাল অর্ডার দেওয়ার আগে অবশ্যই আপনারা যে দোকানে মাল সাপ্লাই দিতে যাবেন সেই দোকানদারদের সঙ্গে কিন্তু আপনাদেরকে আগে থেকেই ভাল ভাবে কথা বলে নিতে হবে।   

সমস্ত কিছু ঠিকঠাক করার পর আপনাদেরকে মাল অর্ডার করা লাগবে। আর তারপরে সেই দোকান গুলোতে সংগ্রহ করা লাগবে। আপনাদেরকে কিন্তু এই ক্ষেত্রে আর ও ১টি জিনিস মাথায় রাখা লাগবে আর সেটা হল অবশ্যই আপদেরকে যে ধরনের মালই সাপ্লাই করেন না কেন সেগুলোকে ভাল মানের দিতে হবে, এই বিষয়টা সব সময়তেই আপনারা মনে রাখবেন।   

কেননা আপনার সাপ্লাই করা মাল যদি ভালো না হয়, তাহলে কিন্তু তারা এক বারের বেশি পরবর্তীতে আপনার মাল আর নিবে না। যার ফলে আপনি এই ব্যবসার মাধ্যমে বেশি দিন টিকে থাকতে পারবেন না। 

তাই আপনাকে অবশ্যই এই বিষয়টি আগে ভালো ভাবে দেখতে হবে। আপনি যদি এই ব্যবসাতে ১ বার জনপ্রিয়তা অর্জন করে নিতে পারেন! তাহলে কিন্তু অবশ্যই এই ব্যবসার মাধ্যমে আপনারা অনেক কিছু করতে পারবেন ভবিষ্যতে। 

আমাদের বাংলাদেশে কিন্তু এরকমের অনেক সাপ্লায়ার ব্যবসায়ী আছে যারা শুধু মাত্র মাসে ২ হতে ৩ বার মাল সাপ্লাই করার মাধ্যমেই সেইখান হতে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করে চলতেছে। তাই আপনারা ও কিন্তু যদি এই ব্যবসা এর সঠিক পদ্ধতি গুলো মেনে তারপরে কাজ করতে পারেন। তাহলে কিন্তু আপনারা এই বিজনেস থেকে বেশ ভাল পরিমানেই মুনাফা লাভ করতে পারবেন।

আমাদের শেষ কথা  

আজকে আমি আপনাদের সাথে আমার এই আর্টিকেলের ভিতরে সেরা কয়েকটা সাপ্লাই ব্যবসা এর আইডিয়া সম্পর্কে ধারনা দিয়েছি। আপনারা ইচ্ছা করলে কিন্তু এই ব্যবসাগুলো করে অনেক অনেক বেশি মুনাফা লাভ করতে পারবেন।         

কিন্তু আপনাদেরকে অবশ্যই যেকোন ব্যবসাতে সফল হওয়ার জন্য কঠোর ধৈর্য ! আর পরিশ্রম এর সঙ্গে কাজ করে যাওয়া লাগবে। আপনারা যদি ধৈর্য ধরে কাজগুলোকে করতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনারা সফল হবে।  

আর আপনারা যদি সাপ্লাইয়ের ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে আমাদের উপরে দেওয়া যে কোন একটি আইডিয়া দেখে তারপরে সেটা শুরু করতে পারেন, আপনাদের ইচ্ছা মত মানে আপনাদের কাছে যেটা করতে ভাল লাগে। আশা করি আমাদের আজকের লেখাটি আপনাদের ভাল লেগেছে আর এই রকমের নিত্য নতুন বিজনেস রিলেটেড তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইট এর সাথেই থাকুন।